Ultimate magazine theme for WordPress.

নোয়াখালীতে প্রবাসীর বাড়িতে সার্কেল এসপির নেতৃত্বে ভাঙচুর ও টাকা লুটের অভিযোগ

0
১১৭ Views

 

মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী-

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী- চাটখিল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে সোনাইমুড়ীতে এক প্রবাসীর বাড়িতে মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে হামলা-ভাঙচুর ও দুই লক্ষ টাকা লুটের অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।
বুধবার (১৪ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে হামলা-ভাঙচুর ও টাকা লুটের অভিযোগ এনে উপজেলার জয়াগ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ভাঙর কোর্ট গ্রামের নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করে ভুক্তভোগী পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ করেন, একটি পারিবারিক মামলায় তাদের মেঝো ছেলে এজেএন হাফিজ উদ্দিন তানভির (২০) এবং তার মা জামিনে রয়েছে। জামিনে থাকা সত্ত্বেও সোনাইমুড়ী-চাটখিল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল আলম খান’র নেতৃত্বে সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.গিয়াস উদ্দিন ও সোনাইমুড়ী থানার উপ- পরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিমের উপস্থিতিতে গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে কিছু বহিরাগত সন্ত্রাসী পুলিশের যোগসাজশে তাদের বসত ঘরের বাহিরে ১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি চালায় এবং একাধিক বোমা ফোটায়। ওই সময় পুলিশ অস্ত্র উদ্ধারের নামে রাত ১২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত জয়াগ ইউনিয়নের ভাঙর কোর্ট গ্রামের লকিয়ত উল্যাহ মাস্টার বাড়ির সৌদি প্রবাসী শামছুল ইসলাম’র বসত ঘরে অভিযান চালিয়ে সিসি ক্যামেরাসহ বসত ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে, আতঙ্ক সৃষ্টি করে নগদ দুই লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।
জয়াগ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মহি উদ্দিন মোহন জানান, গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে এলাকায় এক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনেছি। তবে কে বা কাহারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে এ সম্পর্কে তিনি কিছুই জানাতে পারেননি।
এ বিষয়ে -চাটখিল- সোনাইমুড়ী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল আলম খান জানান, অভিযোগ যে কেউই করতে পারে। তবে এ বিষয়ে তিনি পরে বিস্তারিত জানাবেন বলে মন্তব্য করেন।
এ বিষয়ে নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো.আলমগীর হোসেন বলেন, এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে তারা নোযাখালী পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করুক। তা হলে ঊর্ধ্বতন অফিসার দিয়ে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখবো।

নোয়াখালীতে প্রবাসীর বাড়িতে সার্কেল এসপির নেতৃত্বে ভাঙচুর ও টাকা লুটের অভিযোগ।

মোঃএনায়েত হোসেন, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী- চাটখিল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে সোনাইমুড়ীতে এক প্রবাসীর বাড়িতে মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে হামলা-ভাঙচুর ও দুই লক্ষ টাকা লুটের অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।
বুধবার (১৪ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে হামলা-ভাঙচুর ও টাকা লুটের অভিযোগ এনে উপজেলার জয়াগ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ভাঙর কোর্ট গ্রামের নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করে ভুক্তভোগী পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ করেন, একটি পারিবারিক মামলায় তাদের মেঝো ছেলে এজেএন হাফিজ উদ্দিন তানভির (২০) এবং তার মা জামিনে রয়েছে। জামিনে থাকা সত্ত্বেও সোনাইমুড়ী-চাটখিল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল আলম খান’র নেতৃত্বে সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.গিয়াস উদ্দিন ও সোনাইমুড়ী থানার উপ- পরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিমের উপস্থিতিতে গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে কিছু বহিরাগত সন্ত্রাসী পুলিশের যোগসাজশে তাদের বসত ঘরের বাহিরে ১ রাউন্ড ফাঁকা গুলি চালায় এবং একাধিক বোমা ফোটায়। ওই সময় পুলিশ অস্ত্র উদ্ধারের নামে রাত ১২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত জয়াগ ইউনিয়নের ভাঙর কোর্ট গ্রামের লকিয়ত উল্যাহ মাস্টার বাড়ির সৌদি প্রবাসী শামছুল ইসলাম’র বসত ঘরে অভিযান চালিয়ে সিসি ক্যামেরাসহ বসত ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করে, আতঙ্ক সৃষ্টি করে নগদ দুই লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।
জয়াগ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মহি উদ্দিন মোহন জানান, গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে এলাকায় এক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনেছি। তবে কে বা কাহারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে এ সম্পর্কে তিনি কিছুই জানাতে পারেননি।
এ বিষয়ে -চাটখিল- সোনাইমুড়ী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল আলম খান জানান, অভিযোগ যে কেউই করতে পারে। তবে এ বিষয়ে তিনি পরে বিস্তারিত জানাবেন বলে মন্তব্য করেন।
এ বিষয়ে নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো.আলমগীর হোসেন বলেন, এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে তারা নোযাখালী পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করুক। তা হলে ঊর্ধ্বতন অফিসার দিয়ে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখবো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.