Ultimate magazine theme for WordPress.

ঝিনাইদহে কর্মরত টিআই গৌরঙ্গ পালের মানবিক সহায়তা

0
৪৯ Views

সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি / রানা আহম্মেদ :
ঝিনাইদহ ট্রাফিক পুলিশে কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক টিআই গৌরঙ্গ পাল তিনি খুলনা ব্লাড ব্যাংকের করোনা ফান্ডে একটি কমপ্লিট অক্সিজেন সিলিন্ডার কেনার জন্য আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করে করোনা রোগীদের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন।

ঝিনাইদহে তিনি একজন মানবিক পুলিশ অফিসার হিসাবে পরিচিত। একজন মানবিক পুলিশ অফিসার হিসাবে চাকরিতে প্রবেশের শুরু থেকেই সরকারি দায়িক্তের পাশা পাশি আর্ত মানবতার সেবাই কাজ করে আসছেন।

তিনি যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলায় বসবাসরত শিবু পদ পালের সন্তান। চাকরীতে যোগদানের আগে তিনি খুলনা বিএম কলেজে লেখা পড়া করা কালীন ‘আমাদের খুলনা’ নামে একটি অন লাইন ভিত্তিক পেজকে মানুষের কল্যানে কাজ করতে দেখে তিনি আকৃষ্ট হন। এরপর সময় পেলেই তাদের সাথে মানবিক কাজে অংশ নেন।

ট্রাফিক পুলিশের এই অফিসার গৌরঙ্গ পাল বলেন, অন লাইন ভিত্তিক এই পেজটিতে ব্লাড ডনেট থেকে শুরু করে যে সমস্ত পরিবারের আর্থিক সচ্ছলতা না থাকার কারনে শিশুরা সুষম খাবার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এমন সংবাদ পেলে তাদের শিশুদের সুষম খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

এছাড়াও প্রতিদিন রাত বার টার পর থেকে সৌহার্দের খাবার নিয়ে যে সমস্ত মানুষ সারাদিন মানুষের দারে দারে ঘুরে দিন শেষে কোনমতে খেয়ে নাখেয়ে রাস্তার ধারে অথবা শহরের অলি গলিতে ক্লান্ত শরীর নিয়ে শুয়ে থাকে তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

তিনি বলেন, ‘আমাদের খুলনা’ পেজটিতে বর্তমান করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারনে আক্রান্ত রোগীদের জন্য অক্সিজেনের ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে এমন পোস্ট দেখে সাধ্যমত সেখানে কিছু আর্থিক সহযোগিতা করে অসহায় রোগীদের সেবার কাজে অংশ নিতে চেষ্টা করেছি মাত্র।
পুলিশ পরিদর্শক টিআই গৌরঙ্গ পাল আরও জানান, ক‌রোনা রোগী‌দের শ্বাসকষ্ট শুরু হ‌লে অতিপ্র‌য়োজনীয় হ‌য়ে প‌ড়ে অক্সিজেন।

ক‌রোনায় আক্রান্ত হ‌য়ে মারা যাওয়া অধিকাংশ রোগী শ্বাসক‌ষ্টে অক্সিজেনের অভা‌বে ভু‌গে‌ছেন। যে কারনে দেশের এই দুর্যোগময় মুহূর্তে করোনায় আক্রান্ত হয়ে যারা অসহায় হয়ে পড়েছেন তাদের অক্সিজেন সংকট থে‌কে রক্ষা কর‌তে দেশের বৃত্তবান ও দানশীলদের এগিয়ে আশা এই মুহূর্তে অতীব জরুরী।

তিনি বলেন, আমার সামান্য বেতন থেকে সংসারের খরচ চালিয়ে ছেলে মেয়েদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তিল তিল করে গচ্ছিত টাকা থেকে একটি কমপ্লিট অক্সিজেন সিলিন্ডার কেনার জন্য খুলনা ব্লাড ব্যাংকে’র করোনা ফান্ড অর্থাৎ “আমাদের খুলনা” সংগঠনে দিয়ে ঐ সমস্ত অসহায় রোগীদের পাশে থাকার সামান্য চেষ্টা করেছি মাত্র।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, সুন্দর এই পৃথিবীতে সবাই আমরা মায়ার জালে আবদ্ধ হয়ে আছি। কেউ সুখে আছি, কেউবা দুঃখে আছি, তবে সব থেকে বড় অসহায় তারাই যারা বড়বড় রোগাক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে কিংবা অন্য কোথাও পড়ে আছে। তিনি বলেন, পৃথিবীতে বেচে থাকলে টাকার প্রয়োজন আছে তবে ততটা নয় যা প্রয়োজনের অধিক।

ঝিনাইদহে কর্মরত ট্রাফিক পুলিশের এই কর্মকর্তাকে সদা হাস্যজ্জল ভাবে সর্বদা মানুষের সাথে কথা বলতে দেখা যায়। তার ব্যবহারে বিমুগ্ধ হয়ে অনেকের মুখে তার কাজের গুণাবলীর উপর প্রশংসা করতে শোনা গেছে। অনেকের মুখে শোনা গেছে, মোটর সাইকেলের কাগজ পত্র ত্রুটির কারনে বিপদগ্রস্থ হয়ে তার সামনে পড়লে প্রথমে তাদেরকে বুঝিয়েছেন।

চালকরা আরও বলেছেন, মানুষকে এমন ভাবে তিনি রাস্তায় দাঁড়িয়ে বুঝিয়েছেন পরবর্তীতে যেনো এমন বিপদে আর না পড়তে হয় সেজন্য তারা যথা সম্ভব কাগজপত্র সংশোধন করে তারপর রাস্তায় গাড়ি নিয়ে বের হতে চেষ্টা করেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.