Ultimate magazine theme for WordPress.

আঙ্গারপোতা সীমান্তে রাতের আঁধারে কাঁটাতার নির্মাণের পায়তাঁরা চালাচ্ছেন বিএসএফ!

0
২১ Views

লালমনিরহাট প্রতিনিধি:

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলাধীন বহুল আলোচিত দহগ্রাম ইউনিয়নের আঙ্গারপোতা সীমান্ত এলাকায় রাতের আঁধারে কাঁটাতার নির্মাণের পায়তাঁরা চালাচ্ছেন ভারত। আজ বুধবার সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, সম্প্রতি আঙ্গারপোতা বিওপি এলাকার উত্তর- পূর্ব দিকে ডিএএমপি ১ এর সাব-পিলার ২ থেকে ৬ পর্যন্ত সীমান্তরেখায় ৯ টি এবং ডিএএমপি’ ১০ এর সাব-পিলার ২ সীমান্তে ৩ টি কাঁটাতার নির্মাণের খুঁটি পুতে রাতারাতি বেড়া দেয়ার চেষ্টা করেন ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী ( বিএসএফ)। এমন ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন আঙ্গারপোতা বিওপি’র হাবিলদার ময়নুল ইসলামের নেতৃত্বে বিজিবি’র একটি টহলদল। বিএসএফ এতে তর্কবিতর্ক শুরু করেন। কাজ বন্ধ না’ হলে গুলি চালাতে বাধ্য হবেন বিজিবি’ এমন হুঙ্কার শুনে পিছু হটেন বিএসএফ।

সেই ঘটনার জের ধরে আঙ্গারপোতা সীমান্তের ডিএএমপি ১০ এর সাব-পিলার ৪/৫ সীমান্তে বসবাসরত এক লোকের বাড়ী থেকে রাতে ২ টি গরু চুরি যাওয়ার অভিযোগ তোলা হয় । চুরি যাওয়া গরু ফেরত পেতে গত সোমবার দুপুরে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে আঙ্গারপোতা সিস্টিয়ারপাড় (নতুনপাড়া) গ্রামের সাইদুল নুর ইসলাম রাকিব ও দুলাল নামে ৪ জন লোকের ৬ টি গরু ধরে নিয়ে যান ভারতীয় জনতা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান আঙ্গারপোতা বিজিবি’র জোয়ানরা। এরপর বিজিবি -বিএসএফ পতাকা বৈঠক হয়। আগে ওদের গরু ২ টি ফেরত চায় তারপর গরু ৬টি ফেরত দিবে বলে জানায় বিএসএফ।

পরদিন মঙ্গলবার সকালে সীমান্ত লাগোয়া একটি ধান ক্ষেত থেকে ধানের শীষ ছাড়া সামান্য কিছু ঘাস কেটে আনেন বাংলাদেশি এক লোক। এমন অভিযোগ জানার পর সেই লোককে তল্লাসী শুরু করেন বিজিবি।
এরইমধ্যে ভারতের নাপিতপাড়া এলাকার কয়েকজন লোক সীমান্ত লাগোয়া নতুনপাড়া এলাকার মোজাহারুল হকের সামান্য কিছু ধান ক্ষেত কেটে নিয়ে যান ভারতীয়রা।

কিছুদিন ধরে আঙ্গারপোতা এলাকায় গরু পারাপার ও চুরির অভিযোগ তুলে রাতের আঁধারে বিএসএফ সীমান্ত আইন লংঘন করে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের চেষ্টা করছেন বিএসএফ। আঙ্গারপোতা বিওপি কমান্ডারের ভাষ্যমতে, আসল ঘটনা হল- সীমান্তের দেড়শগজ অভ্যন্তরে ১২ টি খুঁটি পুতে ফেলেন ওরা। আমার দেশের আইন অনুযায়ী বাংলাদেশ সীমান্ত ১৫০ ভারত ১৫০ মোট ৩০০ গজের ভিতরে কোন স্থাপনা বা বেড়া হবে না। অথচ গোপনে কোথাও কোথাও ৫০ গজ অভ্যন্তরে বেড়া দেয়ার চেষ্টা করেন বিএসএফ। রাতের আঁধারে কাঁটাতারের বেড়া দিতে দেইনি। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে যত্রতত্র বিভিন্ন অভিযোগ তুলছেন বিএসএফ এমন দাবী করলেন বিজিবি।

এর আগে তিনবিঘা করিডোরে বাংলাদেশি লোকজনের চলাচল রাস্তার দু’ধারে তিনফিট ওয়াল নির্মাণের চেষ্টা করেন বিএসএফ। বিজিবি’র বাঁধায় ব্যর্থ হয় ওই মিশন।

এসব ঘটনায় বিজিবি সতর্ক রয়েছেন বলে দাবী করেন রংপুর ৫১ বিজিবি’র পানবাড়ি কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার সাঈদ।

এ বিষয়ে কথা বলতে রংপুর ৫১ বিজিবি’র পরিচালক (সিও) মোহাম্মাদ ঈসহাকের নম্বরে সংযোগ মিলেনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.