Ultimate magazine theme for WordPress.

হাতিয়া উপজেলায় ভারী বর্ষনে বন্যার কবলিত এলাকায় চরঈশ্বর ইউনিয়নের বেহাল অবস্থা

0
৮৮ Views

মোঃএনায়েত হোসেন 

নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি

নোয়াখালী জেলার দ্বীপ হাতিয়া উপজেলায় টানা ভারী বর্ষণে বন্যায় কবলিত বিভিন্ন ইউনিয়ন গুলোর মধ্যে চরঈশ্বর ইউনিয়নের বৈশ্বিক মহামারী ভয়াল করোনা সংক্রমণ যখন বাংলাদেশে ব্যাপক ভাবে বিস্তার লাভ করছে,ঠিক তখনই কয়েক দিনের টানা ভারী বর্ষণ ও জোয়ারের পানিতে জলমগ্ন সহ গোটা উপজেলার বেশিরভাগ এলাকায় হাঁটু থেকে কোমর পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে গেছে।

বাড়ি-ঘরে পানি প্রবেশ করায়,হাতিয়া উপজেলায় প্রায় ৪০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

বন্যা কবলিত এলাকা ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার নিম্নাঞ্চল গুলোর কয়েকটি গ্রামীন রাস্তাসহ বাড়ি-ঘর ৩ থেকে ৪ ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে।

এ অবস্থায় নিম্ন আয়ের মানুষসহ উপজেলাবাসী পড়েছে চরম দুর্ভোগে।

চরঈশ্বর ইউনিয়নের এলাকাবাসী জানান,করোনা পরিস্থিতে সৃষ্ট আর্থ-সামাজিক সংকটের আঘাতে মানুষকে যখন চিড়ে-চ্যাপ্টা করে রেখেছে, ঠিক তখন এবারের বন্যা ‘৮৮ সালের বন্যাকেও হার মানিয়েছে।

হাতিয়া উপজেলার অন্য ইউনিয়নের মত চরঈশ্বর ইউনিয়নের বন্যা কবলিত কৃষকরা জানান,তাদের আগাম শাক-সবজি উঠতি আমন ধান সহ ক্ষেতের ফসল বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে ও পুকুরের মাছ ভেসে গেছে।

বিপাকে পড়েছেন গবাদি পশু নিয়ে কৃষক ও কৃষাণী।এদিকে অবিরাম ভারী বর্ষনে শুধু তাই নয়,নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে ঐ ইউনিয়নের পুরো জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ফলে লোকজন ঘর থেকে বের হতে পারছে না। এখনো পানি বন্দী অবস্থায় আছে। ফলে দেখা দিতে পারে কলেরা,টাইফয়েট,জন্ডিস, এবং চর্মরোগসহ নানান ধরনের রোগ।

এঅবস্থায় চরঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হালিম আজাদ জানান,বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে আমার মাথাটা ঠিক নেই কারণ আমি এ অবস্থায় কি করবো অসহায় হতদরিদ্র পরিবারের লোকজন নিয়ে। কোথায় তাদের মাথা গোছার ঠাঁই দিবো।যে দিকে তাকাই শুধু পানি পানি। একটা বেড়িবাঁধ মেরামত করা হয় নাই বিদায় আজ হাতিয়ার অন্যান্য ইউনিয়ন থেকে বেশি ক্ষয়ক্ষতির মুখে চরঈশ্বর ইউনিয়ন। কিন্তু নাই কোন জরুরি ত্রাণ সামগ্রী আর দেখার মতো কোন লোক নেই চরঈশ্বর ইউনিয়নের মানুষের দুঃখের দিনে। আমি তারপর ও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি চরঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হয়ে এবং মরণ পর্যন্ত চরঈশ্বর ইউনিয়নের জনগণের পাশে থাকো। সেবা দিয়ে যাবো নিজের অর্থ দিয়ে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.