Ultimate magazine theme for WordPress.

মোবাইল গেম হলো জীবনের কাল,ট্রেনের ধাক্কায় মুহূর্তে ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন যুবকের দেহ 

0
১৬৩ Views

নিজস্ব প্রতিবেদক

নাটোরের লালপুরে বাড়ির পাশে রেললাইন হওয়ায় সন্ধ্যায় ফারুক নামে এক যুবক রেললাইনে বসে চার বন্ধুর সঙ্গে মোবাইলে গেম খেলছিল। পরে রাত হওয়ায় বন্ধুরা চলে গেলেও ফারুক সেখানে বসেই গেম খেলতে থাকে। নিজের অজান্তে মোবাইল গেমে ডুবে যাওয়াই অবশেষে কাল হলো ফারুকের। মুহূর্তে সে পরিণত হলো ছিন্ন-বিছিন্ন এক মরদেহে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নাটোরের লালপুর উপজেলার বাওড়া-বৃষ্টপুর রেললাইনে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।ঈশ্বরদীগামী একটি মালবাহী ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু হয় ফারুকের।

নিহত ফারুক উপজেলার বাওড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে এবং গোপালপুর পৌর টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজের ছাত্র। তিনি এ বছর এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে উপজেলার গোপালপুর রেলগেটের রাস্তার ওপর মাথাবিহীন টুকরো টুকরো একটি মরদেহ পাওয়া যায়। ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। পরে এক কিলোমিটার দূরে বিচ্ছিন্ন মাথা ও একটি মোবাইল ফোন পাওয়া যায়। এতে মরদেহটি ফারুকের বলে শনাক্ত হয়।

নিহত ফারুকের বাবা বাচ্চু মিয়া জানান, বাড়ির পাশে রেললাইন হওয়ায় সন্ধ্যায় ফারুক রেললাইনে বসে চার বন্ধুর সঙ্গে মোবাইলে গেম খেলছিল। পরে রাত হওয়ায় বন্ধুরা চলে গেলেও ফারুক সেখানে বসেই গেম খেলতে থাকে। রাতে ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশের মাধ্যমে ছেলের মৃত্যুর খবর জানতে পারেন বাচ্চু মিয়া।

স্থানীয়রা জানান, বাওড়া-বৃষ্টপুর রেলওয়ে স্থানীয় তরুণদের কাছে ‘ফ্রি ফায়ার জোন’। বিকেল থেকে রেললাইনের ওপর সারি সারি বসে মোবাইলে গেমে মেতে ওঠে স্থানীয় তরুণরা।

লালপুর থানার ওসি সেলিম রেজা ট্রেনে কাটা পড়ে একজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, যেহেতু ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু হয়েছে, তাই এ বিষয়ে ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.