Ultimate magazine theme for WordPress.

খুলনা জেলা পরিষদ উপ নির্বাচনে সদস্য পদে বিনা প্রতিদন্ডিতায় জয়ী হতে চলেছ আ,লীগ নেতা মিজানুর রহমান(বাবু)

0
২১৮ Views

মহিদুল ইসলাম(শাহীন)ঃঃঃঃঃঃঃঃ

খুলনা জেলা পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য পদে উপ নির্বাচনে বিনা প্রতিদন্ডিতায় নির্বাচিত হতে চলছে বটিয়াঘাটা উপজেলার জলমা ইউনিয়ন আ,লীগ সাধারণ সম্পাদক, সাবেক জলমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্খী,বিশিষ্ট প্লট ব্যবসায়ী, বটিয়াঘাটা প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা এবং সততার প্রতিক বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদের বার বার নির্বাচিক চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম খানের অত্যান্ত স্নেহের মোল্লা মিজানুর রহমান( বাবু)। তিনি রাজনৈতিকসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। গতকাল ২৩ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিলো কিন্তু খুলনা ও বটিয়াঘাটা নির্বাচন অফিস মিলে বাবুর পক্ষে একটি মাত্র মনোনয়ন জমা পড়ায় রীতিমতো বাবুকে নিয়ে চলছে ফেসবুকসহ অন্যান্য গন মাধ্যমে অভিনন্দন, বিবৃতি ও শুভকামনার ঝড়। গতকাল ছিলো মিজানুর রহমান বাবু সামাজিক গন মাধ্যমের মধ্য মনি। জানাগেছে,উপ নির্বাচন উপলক্ষে তফশীল ঘোষণা করেছেন খুলনা ২ এর অতিরিক্ত আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমান। উপজেলা পরিষদ বিধিমালা ২০১৬ এর বিধি ১০(৩) অনুযায়ী উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই মোতাবেক আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন পত্র দাখিল, ২৬ সেপ্টেম্বর যাচাই-বাছাই, ৩ রা অক্টোবর প্রত্যাহার এবং ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার জলমা ইউনিয়নের প্রগতি মাধ্যমিক বিদ্যালয় সেন্টারে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সাবেক মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ পুত্র জেলা পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের সদস্য অভিজিৎ চন্দের মৃত্যুতে এই আসনটি শূন্য হয়। এবিষয় সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও বটিয়াঘাটা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সাত্তার বলেন,৫ টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বরসহ ৬৫ জন জনপ্রতিনিধি জেলা পরিষদের ৫ নং ওয়ার্ডের ভোটার। তাই মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে মনোনয়ন পত্র জমা পড়েছে মিজানুর রহমান বাবু নামের এক প্রার্থীর। আগামী ৩ রা অক্টোবর প্রত্যাহারের দিন নির্ধারন আছে। তাই কাগজ পত্রে যদি কোন ত্রুটি না থাকে সেক্ষেত্রে ঐ প্রার্খীকেই বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করবো। অন্যদিকে মিজানুর রহমান বাবু বিনা প্রতিদন্ডিতায় জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন বটিয়াঘাটা প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি দাতারা হলেন সভাপতি অধ্যাপক এনায়েত আলী বিশ্বাস, সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান উজ্জ্বল, রতন কুমার সাহা, হিরামন মন্ডল সাগর, মোস্তফা বিলাল, সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম( শাহীন), সহ সম্পাদক ইমরান হোসেন সুমন, এস এম বজলুর রহমান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ সোহেল রানা, কোষাধ্যক্ষ তরিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক বাকির হোসেন, আল আমিন শিকদার, স্বাংস্কৃতি সম্পাদক অমলেন্দু বিশ্বাস, প্রচার সম্পাদক রেজাউল করিম, ক্রিড়া সম্পাদক সোহরাব হোসেন, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক তানভীর বিশ্বাস, সমাজ কল্যান সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জয়, তারেক রহমান খান, শেখ জিকু আলম, হানিফ বিশ্বাস, সৌরভ বাছাড় প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.