Ultimate magazine theme for WordPress.

গোদাগাড়ীতে ফ্রি ফায়ার গেইম খেলায় আসক্ত হচ্ছে স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা!

0
৯১ Views

জাহিদুল ইসলাম, গোদাগাড়ী(রাজশাহী)প্রতিনিধি:-

রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় রাস্তার পাশে বন্ধুদের সাথে আড্ডায় মোবাইলে ফ্রি ফায়ার গেইম খেলায় নিয়ে চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। করোনা ভাইরাসে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের বেশির ভাগ সময় কাটছে ফ্রি ফায়ার গেইম নিয়ে।

বিভিন্ন এলাকাঘুরে দেখা যায় , দিনদিন ইন্টারনেট ব্যবহৃত ফ্রি ফায়ার গেমে ঝুকে পড়েছে স্কুল- কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও উঠতি বয়সের তরুণেরা। শুধু শহরে নয় গ্রামের শিশু শিক্ষার্থীরাও ফ্রি ফায়ার নামক গেমে নেশায় আসক্ত হচ্ছে।
জানা যায় ফ্রি ফায়ার খেলায় আসক্ত যারা তারা যদি একদিন না খেলে তাহলে কোনো কিছু ভালো লাগেনা। এ খেলা খেলতে বিভিন্ন লেভেল পার করতে হয় যার বিনিময় অনেক অর্থ ব্যয় হয়। ফ্রি ফায়ার খেলায় যারা একবার আসক্ত হয়েছে কারা আর এ খেলা ছাড়তে পারবেনা বলে মনে করেন ফ্রি ফায়ার গেইমে আসক্ত নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ।

এই বিষয়ে এক শিক্ষকের জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, করোনায় সবচেয়ে বেশী শিক্ষার্থী আসক্ত হচ্ছে এ খেলায়। শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা। কিন্তু লেখাপড়া বাদ দিয়ে তারা ডিজিটাল তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে ফ্রি ফায়ার নামক গেইম নিয়ে ব্যস্ত। যা শিক্ষার্থীকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এ থেকে শিক্ষার্থী বা তরুণ প্রজন্মকে ফিরিয়ে আনতে হলে এ বিষয়ে পরিবারের সকল অভিভাবক তাদের সন্তানদের প্রতি নজর দিতে হবে।
গোদাগাড়ী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের শ্রীমন্তপুর গ্রামে ফ্রি ফায়ার গেইম খেলার ছবি তুলতে গিয়ে এবং তাদের নিষেধ করতে গেলে এলাকার কিছু ছেলে সাংবাদিকদের বলেন,পারলে যা পারবেন করে নেন,আমাদের কিছুই হবে না। অকর্থ্যভাষায় গালিগালাজ করে।

তবে এ বিষয়ে সচেতন মহল মনে করছেন , বর্তমানে এ ফ্রি ফায়ার নামক গেইমে সবচেয়ে বেশি আসক্ত হচ্ছে স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা। অনেকেই এর খেলার পেছনে অর্থ ব্যয় করছেন। অভিভাবকসহ সমাজের সবাই মিলে এ বিষয়ে তদারকি না করলে ভবিষৎতে ফ্রি ফায়ার নামক গেইম মাদকের চেয়ে বেশী ভয়ংকার হতে পারে বলে মনে করেন। তাই সবাইকে সচেতন হতে আহবান জানান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.