Ultimate magazine theme for WordPress.

পর্যালোচনা সভা। প্রস্তাবিত পটুয়াখালী ইপিজেড ও ইনভেস্টরস ক্লাবের অগ্রগতি।

0
১০০ Views

“বাহাদুর আবির” ,ক্রাইম নিউজ টিভি ২৪.

স্টাফ রিপোর্টার পটুয়াখালী

বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা) কর্তৃক পটুয়াখালী জেলার সদর উপজেলাধীন আউলিয়াপুর ইউনিয়নের পঁচাকোড়ালিয়া মৌজার প্রায় ৪০০ একর জায়গা নিয়ে স্থাপিত হচ্ছে পটুয়াখালী ইপিজেড। এছাড়াও ইপিজেড এ দেশি-বিদেশি সম্মানিত বিনিয়োগকারীদের সাময়িক আবাসন সুবিধার জন্য কলাপাড়া উপজেলার কুয়াকাটা মৌজায় ২.২৫ একর জমির উপর স্থাপন করা হচ্ছে ইনভেস্টরস ক্লাব।

প্রস্তাবিত পটুয়াখালী ইপিজেড ও ইনভেস্টরস ক্লাবের অগ্রগতি পর্যালোচনা জন্য আজ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জনাব আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মো: শাহজাহান মিয়া, মাননীয় সংসদ সদস্য; মেজর জেনারেল জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম, নির্বাহী চেয়ারম্যান, বেপজা; জনাব মোঃ ফারুক আলম, সদস্য (প্রকৌশল), বেপজা; মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক, পটুয়াখালী; জনাব মোঃ শহীদুল্লাহ, পুলিশ সুপার, পটুয়াখালী; বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব আলহাজ্ব কাজী আলমগীর, সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, পটুয়াখালী জেলা শাখা; বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব ভিপি আব্দুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, পটুয়াখালী জেলা শাখা; জনাব অ্যাডভােকেট মােঃ গােলাম সরােয়ার, চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, পটুয়াখালী সদর। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বেপজার বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ, সাংবাদিকবৃন্দ, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ।

উপস্থিত সুধীবৃন্দ ও স্টেকহোল্ডারগণ ইপিজেড স্থাপনে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা নিয়ে তাঁদের মতামত ও পরামর্শ সভায় ব্যক্ত করেন। তৎপ্রেক্ষিতে বেপজার সম্মানিত চেয়ারম্যান মহোদয় তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে তাঁদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং সংশয় দূর করেন। একইসাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য জেলা প্রশাসক ও তাঁর টিমকে চেয়ারম্যান মহোদয় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং এই সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

আলোচনা সভা শেষে সম্মানিত অতিথিবৃন্দ পটুয়াখালী ইপিজেড ও ইনভেস্টরস ক্লাবের জন্য প্রস্তাবিত জমি সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।

আশা করা যাচ্ছে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পটুয়াখালী ইপিজেডের কার্যক্রম শুরু হবে। ইপিজেডটি স্থাপিত হলে প্রায় দেড় লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থান হবে এবং দক্ষিণ অঞ্চলের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.