Ultimate magazine theme for WordPress.

বগুড়ার ধুনটে ৫ বছরের শিশু হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন।

0
৮৭ Views

স্টাফ রিপোর্টার:-

বগুড়ার ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের ফকির পাড়া গ্রামের ম্যালয়েশিয়া প্রবাসী আবুল গফুরের ছেলে তৌওহীদ সরকার (৫) নামের এক শিশুকে ঘরের ভেতর ধারালো অস্ত্র (বঁটি) দিয়ে জবাই করে হ’ত্যা করেছে তার বড় ভাই সজিব সরকার (৭) |

(২১ ফেব্রুয়ারি) রবিবার বিকেল ৫টায় বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা ধুনট থানায় প্রেস বিফিংয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ৷
তিনি জানান, জীবিকার তাগিদে আব্দুল গফুর সরকার প্রায় আড়াই বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন। তৌওহীদ তার মা দুলালী বেগমের সাথে দাদা-দাদির বাড়িতে থাকত।(১৯ ফেব্রুয়ারি)শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে মা দুলালী বেগম সজিব (৭)ও তৌওহীদ(৫) নামের দুই ছেলেকে বাড়িতে রেখে সংসারিক কাজের জন্য বাড়ির বাইরে যান ৷ বাড়িতে তখন অন্য কেহ ছিলো না ৷ এসময় তারা বাড়িতে গরু জবাই জবাই খেলার ছলে বড় ভাই সজিব গরু জবাই কেমনে করে তা দেখাতে ধারালো বঁটি গলায় ধরে ৷ খেলার এক পর্যায়ে তৌওহিদ ঘাড় ঘুড়ালে ঘাড়ের কিছু অংশ কেটে যায় ৷
কাজ শেষে দুলালী বেগম বাড়ি ফিরে ঘরের ঢুকে তৌওহীদ কে রক্তাক্ত গলা কাটা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন৷
এমনতাবস্তায় জোরে চিৎকার দিলে তার চিৎকার শুনে দুলালী বেগমের দেবর সোলাইমান আলী ঘটনাস্থালে ছুটে আসেন ৷ পরে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কৰ্তব্যরত চিকিৎস তৌওহীদ মারা গেছে বলে জানান৷
এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে থানা পুলিশ (১৯ ফেব্রয়ারী) শুক্রবার রাতেই ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।
তারা হলেন- নিহতে মা দুলালী বেগম, সৎবোন সুরভী খাতুন, চাচা সোলায়মান আলী ও প্রতিবেশী গোলাম হোসেন। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে নিহতের বড় ভাই সজিব জড়িত হত্যাকান্ডের সাথে নিশ্চিত হয় পুলিশ। পরে সজিবকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা প্রকাশ করে।
বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা জানান, ‘আইন অনুযায়ী ৮ বছরের কম বয়সী শিশুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের কোনো সুযোগ নেই। সজিবও ৮ এর নিচে ৷ এ কারণে তাকে সমাজসেবা কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ধুনট উপজেলার সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল কাফি জানান, সজিবকে আইনি প্রক্রিয়া শেষে তার মায়ের জিম্মায় হস্তান্তর করা হয়েছে ৷

Leave A Reply

Your email address will not be published.