Ultimate magazine theme for WordPress.

পটুয়াখালীতে ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসাইন হাওলাদারের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা।

0
৩০২ Views

বাহাদুর আবির, পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীতে চলমান সিআরআরআইসি প্রকল্পের এলজিইডি কর্তৃক দুঃস্থ মহিলা-পুরুষ দ্বারা মাটির রাস্তা সংস্কার কাজে বাধা দেয়ার প্রতিবাদ করায় ইউপি চেয়ারম্যানকে লাঞ্ছিত করে টাকা ছিনতাই ও জীবননাশের হুমকির অভিযোগে মোঃ শহিদ গাজী (৪০), তরিকুল ইসলাম (তছলিম মাদবর)সহ ৮জনকে চিহ্নিত করে সদর থানায় এজাহার করেছেন সন্ত্রাসীদের হাতে লাঞ্ছিত ছোটবিঘাই ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলতাফ হোসাইন হাওলাদার। এজাহার নং-১৬, তারিখঃ ১৩ ই ফেব্রুয়ারি। রোজ; শনিবার ।

এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, সদর উপজেলার ছোটবিঘাই ইউনিয়নের ইউনুছ হাওলাদারের বাড়ি হইতে মাটিভাঙ্গা পর্যন্ত উক্ত প্রকল্পের মাধ্যমে এলাকার দুঃস্থ মহিলা ও পুরুষেরেদ্বারা মাটির রাস্তার সংস্কার ও ভরাটের কাছ চলমান অবস্থায় মেসার্স গাজী ব্রিকসের নিজস্ব ও ভাড়াকৃত ইট বোঝাই ট্রলি বেপরোয়াভাবে চলাচল করে সংস্কার কাজে যেমন বিঘœসৃষ্টি হয়, তেমনি সংস্কারকৃত রাস্তার ক্ষতি হওয়ায় সংস্কারকাজে নিয়োজিত শ্রমিকরা ট্রলি সমূহের চালকদের ইট বোঝাই ট্রলি চালাতে নিষেধ করে।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রলির ড্রাইভার ও ট্রলিতে থাকা লোকজন সংস্কার কাজে নিয়োজিত মহিলা ও পুরুষ শ্রমিকদের উপর চড়াও হয়। এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে রাস্তা দিয়ে ব্রিকস ফিল্ডের ট্রলির চালানোর প্রতিবাদ করে। ঘটনারদিন ১৩ ফেব্রয়ারী শনিবার দুপুর ২ টায় মেসার্স গাজী ব্রিকসের মালিক মোঃ শহিদ গাজী (৪০) এর নেতৃত্বে ২০-২৫ জনের একদল সন্ত্রাসী দেশী তৈরী রাম দা, ছ্যানা ও লাঠিসোটা নিয়ে রাস্তার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের উপর হামলা চালিয়ে মারধর করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এক অরাজকতার পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। এ সময় কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়।

এ খবর শুনে ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলতাফ হোসেন হাওলাদার ঘটনাস্থলে পৌছলে সন্ত্রাসীরা তার উপরও চড়াও হয়ে অকাথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং ট্রলি চলাচলে বাধা নিষেধ করলে চেয়ারম্যানকে খুন করার হুমকি দেয়। চেয়ারম্যান এ খবর পুলিশকে অবহিত করলে সদর থানার পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে।

ইউপি চেয়ারম্যান সন্ধ্যা ৬টায় শহরে রওয়ানা হয়ে স্থানীয় কাজীর হাট ব্রীজের মাঝ বরাবর পৌছলে উক্ত সন্ত্রাসী মোঃ শহিদ গাজী (৪০) ও তরিকুল ইসলাম (তছলিম মাদবর) নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তার (চেয়ারম্যানের) মোটর সাইকেলের গতি রোধ প্রথমে মাহফিলের চাঁদার টাকা দাবী করে।

এ সময় চেয়ারম্যান মোটর সাইকেল থেকে নামার সাথে সাথে সন্ত্রাসী রাম দা, ছ্যানা, লোহার রডসহ অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাকে ঘেরাও করে দুই লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। এ সময় প্রতিবাদ করার চেষ্টা করলে সন্ত্রাসীরা তাকে লাঞ্ছিত করে এবং তার পরনে পাঞ্জাবীর পকেট থেকে নগদ ৮৬,১০০ টাকা জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয় এবং গাজী ব্রিকস ফিল্ডের ট্রলি, গাড়ি চলাচলে বাঁধা নিষেধ করলে জীবনের তরে শেষ করে ফেলার হুমকি দেয়। এ ঘটনা কাজির হাটে পৌছলে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসতে দেখে সন্ত্রাসীরা ফের খুন করার হুমকি দিয়ে বীরদর্পে চলে যায়।

এ ঘটনায় পরদিন সকালে গাজী ব্রিকসের মালিক সন্ত্রাসী মোঃ শহিদ গাজী (৪০), তরিকুল ইসলাম (তছলিম মাদবর), মনির গাজী((৪৫), মোঃ মামুন(২৫), বাবুল সিকদার(৩৫), নাসির(৩০), ইমরান(২৫)সহ ৮জনকে চিহ্নিত ও আরও ২০-২৫জন ছিল উল্লেখ করে সদর থানায় উক্ত এজাহার করেন ভিকটিম ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন হাওলাদার।

এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি আকতার মোর্শেদ জানান, চেয়ারম্যানকে লাঞ্ছিত ও তার পকেট থেকে টাকা নেয়ার ৭/৮জনকে আসামী করে এজাহারটি রেকর্ড করা হয়েছে, তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ওসি আরও জানান ইটভাটা ভাংচুর, হামলা,বেকু মেশিন, হাওয়া মেশিন আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় গাজী ব্রিকস এর পক্ষ থেকে করা মামলায় রুবেল(২৫) ও গোলাম আহাদ (৫০) নামের দুইজন গ্রেফতার আছে বলে ওসি জানান।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট গোলাম সরোয়ার, ছোটবিঘাই ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন হাওলাদারকে সন্ত্রাসীদের কর্তৃক লাঞ্ছিত ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করেন এবং জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবী করেন। চেয়ারম্যানকে লাঞ্ছিত ঘটনায় এলাকার জনতা ক্ষুব্ধ হয়ে ইটভাটায় হামলা চালানোর ঘটনা শুনেছেন বলেও তিনি জানান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.