Ultimate magazine theme for WordPress.

পোরশায় টিকা নিলেন মুক্তিযোদ্ধা, ইউএনও, সাংবাদিক, স্বাস্থ্য কর্মী এবং জনপ্রতিনিধিরা।

0
৯০ Views

নাহিদ নওগাঁ (পোরশা) প্রতিনিধিঃ

সারা দেশে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর টিকা দেওয়ার কর্মসূচির অংশ হিসেবে অাজ রবিবার বেলা ১১টার সময় নওগাঁর পোরশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আয়োজিত করোনার টিকাদান কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়।

এসময় উপজেলার মর্শিদপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা জনাব মওলা বক্স নামক একজন বীরমুক্তিযোদ্ধাকে প্রথম টিকা দানের মাধ্যমে এ কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পোরশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ অধ্যক্ষ শাহ মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধূরী।
এর পর পর্যায়ক্রমে করোনা প্রতিরোধ মূলক ভ্যাকসিন (টিকা) নিয়েছেন পোরশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব নাজমুল হামিদ রেজা, পোরশা উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক ও নওগাঁ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জনাব অালহাজ্ব মোঃ মোফাজ্জল হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (টিএইচ,এ), ডাক্তার মাহবুব হাসান, উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা লুৎফর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ওয়াজেদ আলী মৃধা, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মাযহারুল ইসলাম, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মিলন কুমার, উপজেলা ইন্সট্রাক্টর (ইউআরসি) কামরুজ্জামান সরকার, নির্বাচন কর্মকর্তা তোজাম্মেল হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজিবুল ইসলাম, নিতপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহ মোঃ আবুল কালাম চৌধুরী, তেঁতুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাইজুল ইসলাম, গাঙ্গুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক, ছাওড় ইউপি চেয়ারম্যান ফকরুদ্দীন আলী আহমদ, ঘাটনগর ইউপি চেয়ারম্যান বজলুর রশিদ, মর্শিদপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, পোরশা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, প্রধান শিক্ষক মওদুদ অাহম্মদ, নিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সভাপতি অালহাজ্ব মোঃ এনামুল হক সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ এসময় টিকা গ্রহণ করেণ।

এসময় ইউএনও নাজমুল হামিদ রেজা বলেন, ‘এখন পর্যন্ত এই টিকার বড় ধরণের কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।

আমি করোনার টিকা গ্রহণ করেছি সুতরাং আপনারও নির্ধিদায় নিতে পারেন। এদিকে উপেজলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার মাহবুব হাসান বলেন, ‘সাধারণ মানুষ যাতে ভীত শঙ্কিত না হন সে কারণে আমি এবং আমার অন্যান্য অফিসার এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা এই টিকা গ্রহন করেছি। এখন পর্যন্ত সবাই ভালো আছেন। আমি সর্ব সাধারণকে অনুরোধ করব আপনারাও খুব তাড়াতাড়ি এই ভ্যাকসিন (টিকা) গ্রহন করুন এবং করোনা মুক্ত জীবন গড়ুন।

এসময় ডাক্তার মাহবুব হাসান আরোও বলেন, প্রথম পর্যায়ে এ উপজেলায় (প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ) ২হাজার ১শত ৩৫জন ব্যক্তিকে টিকার আওয়াতায় আনার লক্ষ্যে ৪হাজার ২শত ৭০টি টিকা মজুদ রয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম চলছে।

এ উপজেলায় এখন পর্যন্ত ৪শত ১০জন টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছেন এবং প্রথম দিন ২৫জন পুরুষ ও ৫জন মহিলা এ ভ্যাকসিন নিয়েছেন বলেও জানান তিনি। এসময় শঙ্কা মুক্তভাবে টিকা নিতে সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন টিকা গ্রহণকারী জনপ্রতিনিধীসহ অন্যান্যরা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.