Ultimate magazine theme for WordPress.

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের ব্যানার ফেস্টুন ভাংচুরের প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন

0
৩৫ Views

সুজন আহম্মেদ শৈলকূপা উপজেলা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ।

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের ব্যানার ফেস্টুন ও তোরণ কেটে ছিঁড়ে ভাংচুর করে ফেলেদিয়েছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। এই বিষয়ে, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি ইউনুস মোল্লা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, ও রাজবাড়ী-১ আসনের মাননীয় এমপি আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ছবি দিয়ে যুবলীগের নেতাকর্মীরা ব্যানার তৈরি করেন। উক্ত ব্যানার ফেস্টুন ও তোরণ এর মূল লক্ষ্য ছিল রাজবাড়ী-১ আসনের মাননীয় এমপি আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী কে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দেখতে চাই। এই ব্যানার গুলো ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক পদ্মার মোড় হইতে দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল পর্যন্ত ২০০ ব্যানার ফেস্টুন ও তোরণ মহাসড়কের দুইপাশ দিয়ে ও আশেপাশের এলাকায় ১০ (সেপ্টেম্বর) যুবলীগের কর্মীরা টানিয়ে ছিলেন। ১৪ (সেপ্টেম্বর) সোমবার রাত আনুমানিক ১১.৩০ ঘটিকার সময়, অজ্ঞাত ৩০/৩৫ জন ব্যক্তি প্রায় ১০০ টি ব্যানার ফেস্টুন ও তোরণ কেটে ছিঁড়ে ভাংচুর করে ফেলে দিয়েছে। লোক মারফতের এর মাধ্যমে সংবাদ শুনে গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগের নেতা কর্মীরা ঘটনাস্থলে যায় এবং কাটা ছিঁড়া ভাংচুর ব্যানার ফেস্টুন ও তোরণ গুলো দেখে এবং স্থানীয় লোকজনকে দেখিয়ে, গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ইমরানুর রহমান সজল, গোয়ালন্দ ঘাট থানায় অজ্ঞাত ৩০/৩৫ জন ব্যক্তির নামে অভিযোগ দায়ের করেছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্মিলিত ব্যানার ফেস্টুন তোরণ কাটা ছেঁড়া ভাংচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ আজ বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের নেতাকর্মীরা এই অপকর্মকারীদের দ্রুতো সনাক্ত করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে, গোয়ালন্দঘাট থানার (ওসি) আব্দুল আল তায়াবির বলেন, এই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.