Ultimate magazine theme for WordPress.

চিলমারীতে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘরের কাগজ পত্র হস্থান্তর।

0
৮৫ Views

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামের চিলমারীর ভূমি ও গৃহহীনরা পেল সুখের ঠিকানা। প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে সুখের সেই ঠিকানার জমির দলিলসহ ঘরের কাগজপত্র হস্তান্তর করা হলো কুড়িগ্রামের চিলমারীর উপজেলার ১শ পরিবারকে।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৪৯২টি উপজেলায় যুক্ত হয়ে গৃহহীন-ভূমিহীনদের মুজিববর্ষের এ উপহার জমি ও ঘর প্রদানের অনুষ্ঠানের উদ্বোধনের পর চিলমারী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা হলরুমে সুবিধাভুগিদের কাগজপত্র প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শওকত আলী সরকার বীর বিক্রম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ্, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আছমা বেগম, চিলমারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য রেজাউল করিম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মোঃ কহিনুর রহমান প্রমুখ। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিক, সুবিধাভুগিসহ বিভিন্ন স্থরের মানুষজন উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, প্রধামন্ত্রীর কার্যালয়ে অধিনে উপজেলা প্রশাসনের বাস্তবায়নে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে কুড়িগ্রামের চিলমারীতেও প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয় পেলেন ১শত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। নির্মিত এই দালান ঘরে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার গুলো পাবে সুখের আশ্রয়, শান্তির নিবাস। কথা হলে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের মদন মোহন এলাকার ভূমিহীন ও গৃহহীন আবুল হোসেন, আজগার, মুকুলসহ বিভিন্ন এলাকার গৃহহীন পরিবাররা জানান, ছিলনা কোন জমি, ছিলনা থাকার মতো একটি ভালো ঘর, সেই স্বপ্ন আর সুখের ঘর দিয়ে শেখের বেটি (প্রধানমন্ত্রী) হামার গুলেক সুখ দেখাইলো বাহে। তথ্য অনুযায়ী আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর অধিনে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন চিলমারী উপজেলার থানাহাট ইউনিয়নে ৭টি, রানীগঞ্জ ইউনিয়নে ৩৭, রমনা মডেল ইউনিয়নে ৫৬ টি পরিবার। সেমিপাকা প্রতিটি গৃহ ০২টি বেডরুম, ০১টি বাথরুম, রান্নাঘর এবং বারান্দাসমূহ। ঘরের উপরে রয়েছে উন্নতমানের রঙ্গিন টিন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.