Ultimate magazine theme for WordPress.

পটুয়াখালী বদরপুরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ হাফিজার উপর অমানুষিক নির্যাতন

0
১৪২ Views

 

মোঃতুহিন শরীফ, সিনিয়ার স্টাফ রিপোটার্র।

পটুয়াখালী সদর উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নের খলিশাখালী গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডে যৌতুকের দাবি পুরন না করতে পারায় গৃহবধূ হাফিজা বেগম (২০) এর উপর অমানুষিক ভাবে শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে, পাষন্ড স্বামীঃ জসিম খানঁ (২৬), পিতাঃ জালাল খানঁ (৫০), শাশুড়ী- ফুলবানু (৪৫), ননদ- রাবেয়া (১৮), ননদের স্বামী-জাকারিয়া চৌধুরী (২২), ও বাবুল খানঁ। বর্তমানে গৃহবধূ হাফিজা বেগম (২০), আহত অবস্থায় পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা-বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ।ঘটনাটি ঘটেছে ৯- সেপ্টেম্বর-২০২০ ইং তারিখ আনুমানিক বেলা ২ টার সময়।

সরেজমিনে জানাগেছে, গত ৩ বছর আগে পারিবারিক ভাবে গৃহবধূ হাফিজা (২০), পিতাঃ জামাল গাজী (৪৫) এর মেয়ে ও একই গ্রামের বাসিন্দা মোঃ জসিম খানঁ (২৬), পিতাঃ জালাল খানঁ (৫০) এর ছেলের সাথে বিয়ে হয়।তাদের ঔরসে মীম (২) বছেরর একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের টাকার জন্য বিভিন্ন সময়ে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে স্বামী, শশুর, শাশুড়ী, ননদ ও ননদের স্বামী জাকারিয়া চৌধুরী।এনিয়ে স্থানীয় শালিশ মিমাংসা হয়েছে কয়েবার।

এবিষয়ে আহত হাফিজা বেগম বলেন, আমার কাছে ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করে শশুর বাড়ির লোকজন। আমার বাবার সমর্থ নেই এত টাকা দেয়ার।আমাকে বিয়ের পর থেকেই নানান ভাবে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে শশুর বাড়ির লোকজন।ঘটনার দিন ০৯/০৯/২০ ইং তারিখ বেলা ২ টার দিকে হটাৎ করে শাশুড়ী ও ননদ বাবার বাড়িতে গিয়ে টাকা এনে দিতে বলে আমি অসী অস্বীকৃতি জানালে সকলে মিলে আমাকে এলোপাতাড়ি ভাবে মারধর শুরু করে এছাড়াও ইট দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে এবং মুকোর দিয়ে আমাকে পেঠানো হয় এছাড়াও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে মেরে আমাকে বাড়ি থেকে বাহির করে দেয় এবং স্বামী জসিম খানঁ তালাকের হুমকি দেয়।

এনিয়ে হাফিজার বাবা জামাল গাজী বলেন, আমার মেয়েকে যৌতুকের টাকার জন্য বহুবার নির্যাতন করে আজ মেরে বাড়ি থেকে বের করে দে। খবর শুনে ছুটে আসি এবং পটুয়াখালী ব্রীজ সংলগ্ন থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসি।কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ভর্তি দেন।আমি আমার মেয়ের উপরে অমানুষিক নির্যাতন এর বিচারের দাবি জানাই। তিনি আরও বলেন, আমি আইনের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পটুয়াখালী সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি বলে জানান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.