Ultimate magazine theme for WordPress.

কলাপাড়ায় মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে জখম করায় ভাইয়া বাহিনীর প্রধান চেয়ারম্যান শিমু ও তার স্ত্রী সহ গ্রেফতার ৫.

0
৫৫ Views

 

 

এস আল-আমিন খাঁন পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধিঃ

 

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় শাহ আলম হাওলাদার (৬৪) নামের এক মুক্তিযোদ্ধাকে চাঁদা না দেয়ায় কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় উপজেলার টিয়াখালী ইউ/পি চেয়ারম্যান ভাইয়া বাহিনীর প্রধান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু ও তার স্ত্রী খাদিজা আক্তার এলিজাসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

রবিবার (২৯-নভেম্বর-২০ইং) তারিখ আনুমানিক রাত ২ টার সময় এদের গ্রেফতার করা হয়।

 

জানা যায়, গত রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় চাকামইয়া ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের বিসমিল্লাহ ব্রিক ফিল্ডের কার্যালয় মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হাওলাদারের ওপর হামলা চালায় একদল সন্ত্রাসী। স্থানীয়রা ঐ মুক্তিযোদ্ধকে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে আমতলী হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

 

এ ঘটনায় রাতে আহত মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আকলিমা বেগম বাদী হয়ে মশিউর রহমান (শিমু)- সহ ১১ জনের নাম উল্লেখ ও ২০-৩০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

 

এবিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হাওলাদারের ছেলে মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। স্থানীয় শিমু বাহিনীর সন্ত্রাসীরা বাবার কাছে চাঁদা চেয়েছিল। চাঁদার টাকা না দেয়ায় স্থানীয় জহিরুল, সবুজ, খলিল, রুবেল, আ. রহমানসহ ১৫-২০ সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বাবাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে জখম করে।

 

এ ব্যাপারে কলাপাড়া থানার ওসি খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। ঐ রাতেই পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারে অভিযান চলমান রয়েছে বলে জানান।

 

অপরদিকে চাকামইয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির কেরামত হাওলাদার দাবি করেন, এই ভাইয়া বাহিনী শান্ত চাকামইয়া ইউনিয়নকে অশান্ত করে দিয়েছে। এছাড়া শিমুর স্ত্রী বিএনপি নেত্রী এলিজার রয়েছে নিজস্ব আরও একাধিক সন্ত্রাসী বাহিনী।

 

এদিকে আজ সকালে মশিউর রহমান শিমুর মুক্তির দাবিতে তার অনুসারিরা কলাপাড়া পৌরশহরে মিছিল করেছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.