Ultimate magazine theme for WordPress.

দামুড়হুদায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা

0
১৮৯ Views

হাফিজুর রহমার স্টাফ রিপোর্টার ঃ দামুড়হুদা উপজেলার ছোট দুধপাতিলা গ্রামে পারিবারিক কলহের জের ধরে অভিমান সালেহার খাতুন (১৮) নামের এক গৃহবধূ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।স্থানীয় সূত্র জানা-গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানাধীন পারকৃষ্ণপুর মদনা ইউনিয়নের শহিদুল ইসলাম এর মেয়ে সালেহার খাতুনের সঙ্গে শরিয়ত মোতাবেক প্রসঙ্গগত ১ বছর পূর্বে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়,দামুড়হুদা উপজেলার হাউলী ইউনিয়নের ছোট দুধপাতিলা গ্রামের তৌফিকের ছেলে আ: জলিলের সাথে স্থানীয়রা আরও বলেন, বুধবার( ২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টার সময় কান্না কাটি শুনে আমরা ঘটনা স্হলে আসি এসে দেখি গৃহবধু সালেহার খাতুন নিজ ঘরের মধ্যে ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে, বাসার লোকজনের জিগ্যেসা করলে তারা বলেন আমরা কিছুই জানি না, আমাদের বাড়ি কোন কিছুই হয়নি কি জন্য গলায় দড়ি দেলে আমরা কিছুই বুঝতে পারছি না, তার পর পুলিশ আসার কথা শুনে বাড়ির সবাই পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশের একটি দল ছোট দুধপাতিলা গ্রামের স্বামীর ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে সালেহার খাতুনের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে, চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। নিহতের মামা আলাউদ্দিন জানান, আমার ভাগ্নির ১বছর আগে ছোট দুধপাতিলায় বিয়ে হয়, বিয়ের পর থেকে শুনে আসছি তার উপর নির্যাতন করে, হয়তো সেজন্য আত্মহত্যা করেছে না হয় তারা মেরে ফেলে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছে, কেনো না আমার ভাগ্নির গর্ভে ৪ মাসের সন্তান আমার বিশ্বাস সে আত্মহত্যা করতে পারে না, আমি আমার ভাগ্নি হত্যার বিচার চাই। দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আব্দুল খালেকের কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নিহতের পিতা শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন,লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে রিপোর্ট আশার পর পরবর্তী ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.